[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



স্ট্রবেরি চাষে আশার আলো…


প্রকাশিত: March 27, 2015 , 11:04 pm | বিভাগ: আপডেট,বিজনেস


straজয়পুরহাট লাইভ: বসন্তে প্রকৃতিতে অনেক রঙ্গের সমাহার হয়। নানা রকম রঙ্গিন ফুল আমাদের মনের সৌন্দয্য বা ফিটনেস বাড়িয়ে থাকে। আর শারীরিক ফিটনেসের জন্য একটি অত্যন্ত সুস্বাদু ও সুন্দর ফল স্ট্রবেরি। অনেকেই হয়তো ভাবছেন দেশি এতো ফল থাকতে এই স্ট্রবেরির গুণাগুণ কেন? এই স্ট্রবেরি ফলটি বিদেশে অত্যান্ত জনপ্রিয় ও স্বাস্থ্যসম্মমত ফল।

কারণ এই ফলটি নি:সন্দেহে আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ভালো। তাছাড়াও অনেক খাবারে এটি ব্যবহার হয়। দেশেই এখন স্ট্রবেরির চাষ হচ্ছে। এই বসন্তে এটি সব জয়গায় আমাদের দেশের এখন পাওয়া যাচ্ছে। এই ফলটি প্রচুর পুষ্টি সমৃদ্ধ। এই বসন্তের লোভনীয়, রসালো, সুন্দর, লাল রঙ্গের, সুগন্ধী ও সুস্বাদু ফল স্ট্রবেরি নিয়ে জয়পুরহাটের কিছু কথা।

জয়পুরহাটে স্ট্রবেরির চাষ শুরু হয়েছে ২০১১ সালে আক্কেলপুর উপজেলার জামালগঞ্জে। স্ট্রবেরি চাষ শুরু করে মুহা. জিল্লুর রহমান। তিনি জানান, তার সাড়ে ৬ বিঘা জমিতে স্ট্রবেরি চাষ করে গত বছর লাভ হয়েছে প্রতি বিঘায় ২-৩ লাখ টাকা। প্রত্যেক দিন তিনি জমি থেকে ৬০০-৭০০ কেজি স্ট্রবেরি বিক্রয় করতেন।

strabএছাড়াও তিনি স্ট্রবেরির চারা বিক্রয় করে লাভ করে ৩-৪ লাখ টাকা। প্রথমের দিকে স্ট্রবেরি বিক্রয় হয় প্রতি কেজি ১২০০ টাকা। তবে এই বছর দেশের বিরাজমান অবস্থার কারণে তাদের লাভের পরিমাণ কমে গেছে ৬০ ভাগ। আরেক স্ট্রবেরি চাষী

মুহা.আব্দুল হামিদ জানান, তারা চার বন্ধু পড়ালেখা শেষ করে বেকার জীবন যাপন করছিলেন। স্ট্রবেরি চাষে একটি প্রতিবেদন দেখে তারা স্টোবেরি চাষের আগ্রহী হয়ে পড়েন। চার বন্ধু মুহা. আব্দুল হামিদ, আব্দুল ওয়াদুদ সরকার, ফারুক হোসেন বাবু ও রবিউল ইসলাম মিলে ১২ বিঘা জমিতে স্ট্রবেরির ৭০০টি চারা রোপন করেন। তারা ১২ বিঘা জমিতে ২০ হাজার টাকা ব্যয় করে ৪৬ হাজার টাকার স্ট্রবেরি বিক্রয় করে লাভবান হয়।

এছাড়াও তারা ১২ বিঘা জমিতে স্ট্রবেরি চারা বিক্রয় করে ৬ লাখ টাকার। তারা ‘রেড গ্রিন স্ট্রবেরি ভিলেজ’ নামে স্ট্রবেরি চাষ করে যাচ্ছেন। তাদের স্ট্রবেরি বেশি বিক্রয় হয় কুষ্টিয়া, খুলনা ও ঢাকায়। তাই জয়পুরহাটের চাষিরা স্ট্রবেরি চাষে উৎসাহিত হয়ে বিঘা বিঘা স্ট্রবেরি চাষ শুরু করেছে।

জয়পুরহাট// এএম, ২৭ মার্চ ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// এআর