[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



‘শিক্ষা ও পরীক্ষা বিধ্বংসকারীরা দেশ ও জাতির শত্রু’


প্রকাশিত: March 30, 2015 , 4:18 pm | বিভাগ: আপডেট,ঢাকার ক্যাম্পাস,পাবলিক ইউনিভার্সিটি


লাইভ প্রতিবেদক: জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ বলেন, ‘বিভিন্ন পর্যায়ের লক্ষ লক্ষ পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা ও শিক্ষার্থীদের নির্বিঘ্নে ক্লাস চালিয়ে যাওয়ার কথা বিবেচনায় না এনে যারা সংকীর্ণ রাজনৈতিক স্বার্থে মাসের পর মাস শিক্ষা ও পরীক্ষা বিধ্বংসী কর্মসূচি পালন করে, তারা দেশ ও জাতির শত্রু।’

সোমবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে কলেজ শিক্ষকদের ৮৯তম ব্যাচের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের সমাপনী অনুষ্ঠানে সনদ বিতরণকালে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, “জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি সম্পূর্ণ সেশনজট মুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে একটি ক্রাশ প্রোগ্রামের আলোকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যখন অগ্রসর হচ্ছিল, ঠিক সেই অবস্থায় দেশের কতিপয় বিরোধী দলের দীর্ঘ প্রায় ৩ মাস ধরে হরতাল-অবরোধ ও পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে প্রাণহানির মত নৃশংস ঘটনা আমাদের সকল আয়োজন-উদ্যোগকে বিপর্যস্ত করে তুলেছে। দেখা দিচ্ছে সেশন জটের নতুন সম্ভাবনা।”

তিনি আরও বলেন, “আর অনিশ্চয়তার মধ্যে বসে না থেকে আমরা যে-কোনো প্রতিকূল অবস্থার মধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজসমূহে ক্লাস নেয়া ও পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের এ উদ্যোগ সফল করতে আমি সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করি।”

অনুষ্ঠানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ আসলাম ভূঁইয়া, প্রফেসর ড. মুনাজ আহমেদ নূর, ট্রেজারার প্রফেসর মোঃ নোমান উর রশীদ, কোর্স উপদেষ্টা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ আখতারুজ্জামান, একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের প্রফেসর মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের প্রফেসর ড. নূরুল ইসলাম নাজেম বক্তব্য রাখেন।

সভায় স্নাতকোত্তর শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্র এর ডিন (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মো: আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন, রেজিস্ট্রার, বিভাগীয় প্রধানসহ প্রশিক্ষণার্থীগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক সাইদা ফাতিমা।

উলে­খ্য, হিসাববিজ্ঞান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, ভূগোল ও পরিবেশ বিষয়ে ৯৬ জন কলেজ শিক্ষক চার সপ্তাহ ধরে এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন।

ঢাকা, ৩০ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//আরজে