[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



বিজ্ঞান ভীতি দূর করবে এআইপিএস ফাউন্ডেশন


প্রকাশিত: June 22, 2015 , 7:39 pm | বিভাগ: আপডেট,চট্টগ্রামের ক্যাম্পাস,পাবলিক ইউনিভার্সিটি,ফিচার


শাহাদাত হোসেন: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থীদের সংগঠন:  Aid and Inspiration to promote Science (AIPS) Foundation. যা সবার কাছে এআইপিএস ফাইন্ডেশন নামে পরিচিত। এ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রতি শিক্ষার্থীদের ভীতি কমিয়ে স্কুল শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান চর্চায় আগ্রহী করে তুলতে কাজ করছে।

এআইপিএস’র প্রতিষ্ঠাতা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশিকুল ইসলাম বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে যে দেশ যতো অগ্রসর, সে দেশ তত উন্নত। উন্নয়নশীল দেশের গণ্ডি পেরিয়ে উন্নত দেশের কাতারে নাম লেখাতে হলে বাংলাদেশকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে হবে। অথচ বিদ্যালয়গামী শিক্ষার্থীদের মাঝে বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি ভীতি রয়েছে।

তিনি বলেন, সদ্য জেএসসি পাস করা অনেক শিক্ষার্থী সৃজনশীল শিক্ষা ব্যবস্থায় বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে ভয় পায়। বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকায় অবস্থিত বিদ্যালয়গুলোতে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীর সংখ্যা অত্যন্ত নগণ্য।

তাই গ্রামীণ এলাকায় অবস্থিত বিদ্যালয়গুলোর জেএসসি পরীক্ষার্থীদের মাঝে বিজ্ঞান ভীতি দূর করে তাদেরকে বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি আগ্রহী করে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে এআইপিএস।

CU AIPSছবি: AIPS এর সদস্যরা।

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশিকুল ইসলাম জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলতে হলে আমাদের বিজ্ঞান শিক্ষায় অগ্রসর হতে হবে। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে সংগঠনের সদস্যরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন গ্রামীণ বিদ্যালয়গুলোতে গিয়ে জেএসসি পরীক্ষার্থীদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে তাদের বিজ্ঞান ভীতি দূর করা হচ্ছে। যাতে নবম শ্রেণিতে বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে তারা আগ্রহী হয়।

কিভাবে সহজবোধ্য ভাবে বিজ্ঞান পড়া যায়, বিজ্ঞান বিভাগে পড়ার সুবিধা, বিজ্ঞান বিভাগ পড়ুয়া শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার, ছাত্র হিসেবে দেশের প্রতি আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য এবং নৈতিক শিক্ষা।

ভবিষ্যতে এই সংগঠনের কার্যক্রম চট্টগ্রামের গণ্ডি পেরিয়ে সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পন রয়েছে বলেও জানিয়েছেন এর প্রতিষ্ঠাতা।

সংগঠনটির সদস্য শাহরিয়ার আহমেদ বলেন, “যদি একজন শিক্ষার্থীও আমাদের কথা শুনে বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি অনুপ্রাণিত হয় তবে আমাদের এই প্রচেষ্টা সার্থক।”

সমগ্র জাতি সেই সব কর্মঠ ছেলেদের অপেক্ষায়, যাদের হাত ধরে এই দেশ উন্নতির সোপানে এগিয়ে যাবে। আজকের এই তরুণ শিক্ষার্থীরাই হবে দেশ গড়ার ভবিষ্যৎ কারিগর বলে মনে করেন।

চবি// ২২ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// এইচএস