[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



ভিজিট বাংলাদেশ, পর্যটন বর্ষ-২০১৬


প্রকাশিত: July 16, 2015 , 7:50 pm | বিভাগ: আদার্স,আপডেট,ফিচার


লাইভ প্রতিবেদক: দেশী-বিদেশী পর্যটকদের দৃষ্টি কাড়তে নানান পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন। একই সাথে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধাও ঘোষণা করছে। পর্যটন কেন্দ্র, আবাসিক হোটেল, মোটেল, বিনোদন স্পট, বাস ও এয়ারলাইন্সের ক্ষেত্রেও নানান সুবিধা ঘোষণা করেছে।

বাংলাদেশ পর্যটন বর্ষ-২০১৬ কে সফলভাবে উদযাপনের গৃহীত উদ্যোগের অংশ হিসেবে দেশি/বিদেশি পর্যটকদের আগমনের লক্ষ্যে গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে দেশবাসীকে গণমাধ্যমের মাধ্যমে অবহিত করার জন্য বুধবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের উদ্যোগে একটি সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

সম্মেলনে সংশ্লিষ্ট সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের উপর আলোকপাত করেন, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান জনাব অপরূপ চৌধুরী, পিএইচডি এবং বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী আখতারুজ্জামান খান কবীর। উভয় বক্তা বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন এয়ারলাইন্স সেবা প্রদানকারী এবং আবাসন ও আপ্যায়ন সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ কর্তৃক বাংলাদেশ পর্যটন বর্ষ-২০১৬ উপলক্ষে বাংলাদেশে আগত ও অবস্থানকারী দেশি/বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে নির্ধারণ করেছে।

বাংলাদেশ পর্যটন বর্ষ ২০১৬ কে সাফল্যজনকভাবে উদযাপনরে ব্যাপারে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের এদেশে ভ্রমণের জন্যে বিমান পরিবহন সংস্থা সরকারি/বেসরকারি ও পর্যটন আবাসন ও আপ্যায়ন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের বিশেষ সুবিধা প্রদানের ঘোষণা।

বাংলাদেশ পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন ও বিকাশে একটি অন্যতম কার্যকর বিপণন উদ্যোগ হচ্ছে ভিজিট বাংলাদেশ ইয়ার অর্থাৎ বাংলাদেশ পর্যটন বর্ষ ২০১৬ উদযাপন। দেশি-বিদেশি পর্যটকদের নিকট বাংলাদেশকে সুপরিচিত গ্রহণযোগ্য, নিরাপদ ও আকর্ষণীয় পর্যটন গন্তব্য হিসেবে তুলে ধরার ক্ষেত্রে এ উদ্যোগটি অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে।

বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৬ সালকে পর্যটন বর্ষ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন। এর সফল উদযাপন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রথমবারের মত পায় ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘোষণা করেছেন। ইতোমধ্যে এ বর্ষকে সামনে রেখে বাংলাদেশে বিদেশি পর্যটকদের আগমন ও দেশের অভ্যন্তরীন পর্যটন আকর্ষণ সমূহে গমনাগমনে যোগাযোগ এবং আবাসিক অবকাঠামো ও পরিকাঠামোগত বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন কাজের সূচনা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক পর্যায়ে পর্যটন গন্তব্য হিসেবে সুপরিচিত দেশ সমূহ তাঁদের গন্তব্যের দিকে পর্যটন উৎস দেশ সমূহের পর্যটকদের টেনে আনতে পর্যটন বর্ষ পালনের বিপণন উদ্যোগকে অত্যন্ত কার্যকর ভাবে ইতোমধ্যে বাস্তবায়ন করেছে । এজন্যে তারা তাদের গন্তব্যে বিদ্যমান পর্যটন পণ্য উন্নয়ন, রক্ষণাবেক্ষণ, নতুন পণ্য সৃষ্টিকরণসহ অবকাঠামো ও পরিকাঠামোগত সুবিধাদি অগ্রিমভাবে নিশ্চিত করে পর্যটন বর্ষ পালনের আগাম ঘোষণা প্রদান করে।

এ বর্ষে পর্যটকদের গন্তব্যে আগমনকে টার্গেট করে তাঁদের অবকাশকালীন সময়কে আরামপ্রদ ও বিনোদনমূলক সুন্দর অভিজ্ঞতায় রূপান্তর করার জন্য বিবিধ বর্ণাঢ্য ইভেন্টের আয়োজন করে।

সর্বোপরি তাদের দেশে পর্যটকদের আগমন থেকে প্রস্থান পর্যন্ত অভ্যর্থনা, পরিবহন, আবাসন, আপ্যায়ন ও বিনোদনের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা সম্পন্ন করে। এসকল আয়োজনকে একটি অদৃশ্য সুতোয় গেঁথে তাদের পূর্ব নির্ধারিত বিপণন পরিকল্পনা ও কৌশল অনুযায়ী প্রচার কার্যক্রম পরিচালনা করে।

এ ক্ষেত্রে সরকারি/বেসরকারি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসহ সমগ্র দেশবাসীকে সম্পৃক্ত করে গন্তব্য দেশ তাঁদের ঈস্পিত লক্ষ্য যেমন পর্যটক আগমনের হার বৃদ্ধি করা, তাদের অবকাশের ব্যপ্তি বৃদ্ধি করার কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে ।

 পর্যটন বর্ষ-২০১৬ চলাকালীন দলবদ্ধ ভ্রমনের আওতায় দেশি/বিদেশি এয়ারলাইন্সে আগত বিদেশি পর্যটকগণ পর্যটন করপোরেশনের আবাসিক স্থাপনা ব্যবহার করলে তাঁরা সে সব হোটেল মোটেলে অবস্থানকালীন সকালের সৌজন্যমূলক প্রাতরাশসহ ৩০% রেয়াত এবং মধ্যাহ্ন ও নৈশভোজে ২০% রেয়াত সুবিধা প্রাপ্য হবেন ।

 পর্যটন বর্ষ – ২০১৬ উপলক্ষে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের স্থাপনা সমুহে আয়োজিত সভা সেমিনার ও কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী বিদেশি পর্যটকদের আবাসন সুবিধায় সৌজন্যমূলক প্রাতঃরাশসহ ৩৫% রেয়াত এবং মধ্যাহ্ন ও নৈশভোজের ক্ষেত্রে ২০% রেয়াত প্রদান করা হবে ।

 দেশের অভ্যন্তরে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে আগমনকারী পর্যটন প্রিভিলিজড কার্ডধারী পর্যটকগণ পর্যটন করপোরেশনের হোটেল মোটেলে সৌজন্যমূলক প্রাতরাশ ও দুই বোতল সুপেয় পানীয়, আবাসিকে ২৫% রেয়াতসহ তিনটি আবাসিক কক্ষ ব্যবহারের সুযোগ পাবেন । এ ক্ষেত্রে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও অন্যান্য এয়ারলাইন্স তাঁদের যাত্রীদের জন্যে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের প্রিভিলিজড কার্ড পূর্বেই গ্রহণ করবে এবং টিকেট বিক্রির সময় কার্ডটি নির্ধারিত মূল্যের বিনিময়ে অতিথিদের প্রদান করবে।

 বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের সকল ইউনিটে সৌজন্যমূলকভাবে ওয়াইফাই ইন্টারনেট সুবিধা প্রদান করা হবে। পর্যটন বর্ষ উপলক্ষে দেশি প্রতিষ্ঠান সমূহের আয়োজিত সভা সেমিনার কর্মশালায় ব্যবহারের জন্য সংস্থার সম্মেলন কক্ষ/অডিটরিয়াম ২০% রেয়াত এবং মধ্যাহ্ন ও নৈশভোজের খাবারের ক্ষেত্রে ১৫ % রেয়াত প্রদান করা হবে ।

 বিদেশি পর্যটকগণ বাংলাদেশে আগমনের ০১ (এক) মাসের মধ্যে তাঁদের ব্যবহৃত এয়ারলাইন্সের বোর্ডিং কার্ড প্রদর্শন করে সংস্থা প্রদত্ত বর্ণিত আবাসিক ও আপ্যায়ন সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন ।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স:

biman
 বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স তাঁদের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক কার্যালয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও অন্যান্য আবাসিক ও আপ্যায়ন সুবিধা প্রদানকারী সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহের প্রদত্ত সুবিধাদির বিপণন করবে। দেশে/বিদেশে যে সকল বিমান অফিস রয়েছে সেখানকার কাউন্টার থেকে সরাসরি বিমান টিকেট ক্রয় করলে সে সকল টিকেটের উপর ১০% রেয়াত প্রদান করা হবে।

বিএসএল (বাংলাদেশ সার্ভিসেস):

bsl
 বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন নভো এয়ারসহ অন্যান্য এয়ারলাইন্সের প্রিভিলিজড কার্ড ও লয়্যালিটি কার্ড প্রদর্শন সাপেক্ষে বিজনেস ক্লাসে ভ্রমণকারী বিদেশি পর্যটকগণ হযরত শাহজালাল (রহঃ) আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবস্থিত তাদের বলাকা ভি আই পি লাউঞ্জে ৩০% রেয়াতে খাবার গ্রহণ করতে পারবেন।

প্যানপ্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁও:

pan pacific sonargaon

 পর্যটন বর্ষ -২০১৬ উপলক্ষে প্যানপ্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁও প্রাপ্তি সাপেক্ষে তাদের ডিলাক্স একক শয্যার আবাসিক কক্ষে ভ্যাট ও সার্ভিস চার্জ ব্যতিরেকে ৫০% এবং দ্বৈত শয্যার আবাসিক কক্ষে ৫০% রেয়াত প্রদান করবে। এছাড়াও কক্ষ সুবিধাভোগীরা ক্যাফে বাজার রেস্তোঁরায়, প্রাতরাশ, হেলথক্লাব, সুইমিংপুল ব্যবহার, বিমান বন্দর থেকে হোটেলে বাস সার্ভিস, আবাসিক কক্ষে ওয়াইফাই ও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সুবিধা, পানীয়, সংবাদপত্র, ০২ বোতল সুপেয় পানি, চা/কফি প্রস্তুতকারী সরঞ্জামসমুহ সৌজন্যমূলকভাবে ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে প্রাপ্য হবেন।

নভোএয়ার:

novoair

 পর্যটন বর্ষ- ২০১৬ উপলক্ষে নভো এয়ার তাঁদের তরফ থেকে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের প্যাকেজ ট্যুরের যাত্রীদের টিকেটের উপর ১৫% রেয়াত প্রদান করবে এবং বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন কর্তৃক ঘোষিত সেবা সমূহ সম্পর্কে তাঁদের যাত্রীদের অবহিত করবেন।

এছাড়া উল্লেখিত সেবা সমূহ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন, প্রাইভেট এয়ার লাইন্স, বি এস এল ও অন্যান্যরা তাঁদের ওয়েব সাইটে অন্তর্ভূক্ত করবেন এবং সংশ্লিষ্টরা ওয়েবসাইটে ইন্টারলিংকড থাকবে ।

 বিমানের লয়্যালিটি কার্ড পর্যটনের প্রিভিলাইজড কার্ড হিসেবে ব্যবহৃত ও গ্রহণযোগ্য হবে ।

 হোটেল সোনারগাঁও এর ঘোষিত সেবা সমূহ অনাবাসী বাংলাদেশী ও বিদেশী পর্যটকদের জন্য প্রযোজ্য হবে ।

 প্রাইভেট এয়ারলাইন্সগুলো পর্যটন বর্ষ উপলক্ষে তাঁদের টিকিটে বিভিন্ন হারে রেয়াত প্রদান করে পর্যটকদের ভ্রমণে আকৃষ্ট করবে এবং বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও সোনারগাঁও হোটেল এ উপলক্ষে আগত তাঁদের যাত্রীদের সুবিধার জন্য পৃথক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ।

 দেশি/বিদেশি এয়ারলাইন্সগুলোকে আরও সম্পৃক্ত করে পর্যটন বর্ষ -২০১৬ উপলক্ষে তাঁদের প্রদানযোগ্য রেয়াত ও সুবিধাদি সম্পর্কে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করবেন ।

 বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড, মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট সকল সংস্থা বাংলাদেশ পর্যটন বর্ষ- ২০১৬ উপলক্ষে ঘোষিত সেবা ও সুবিধা সমূহ যথাযথ প্রচারের ব্যবস্থা নিবেন ।

parvez-300x166

পরবর্তীতে এ সংক্রান্ত উপস্থিত সংবাদ মাধ্যমের কর্মীদের বিবিধ প্রশ্নের জবাব বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী প্রদান করেন। এখানে উল্লেখ্য সংবাদ সম্মেলনে উপস্থাপিত সুবিধাদি সম্পর্কে দেশের ইনবাউন্ড ট্যুর অপারেটররা অবহিত হয়ে তাঁদের ট্যুর প্ল্যানে এবং ভ্রমণ সূচিতে অন্তর্ভূক্তির সুবিধা পাবেন।

এছাড়াও দেশি/বিদেশি পর্যটকগণ গণমাধ্যমের সহায়তায় এ সম্পর্কে অবগত হয়ে তাঁদের ভ্রমণ পরিকল্পনায় বাংলাদেশকে পর্যটন গন্তব্য হিসেবে এ সময়ে অর্ন্তভূক্ত করতে আকৃষ্ট হবেন বলে সংশ্লিষ্টগণ মত প্রকাশ করেন।

ঢাকা// ১৬ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// এইচকে