[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



জঙ্গীবাদকে ছাড় দেয়া হবে না- ঢাবি প্রক্টর


প্রকাশিত: July 25, 2015 , 9:23 pm | বিভাগ: আপডেট,ইন্টারভিউ,ঢাকার ক্যাম্পাস,পাবলিক ইউনিভার্সিটি


ঢাবি লাইভ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) প্রক্টর প্রফেসর এমএম আমজাদ আলী বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটি অসাম্প্রদায়িক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এখানে জঙ্গীবাদের কোনো ঠাঁই নেই। এর সাথে জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। নি¤েœ তার পূর্ণাঙ্গ সাক্ষাতকারটি তুলে ধরা হলো:

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হিসেবে কতদিন যাবৎ দায়িত্ব পালন করছেন?
আমজাদ আলী: আমি প্রক্টর হিসেবে ২০১১ সালের ৪ অক্টোবর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব পালন করে আসছি।
ক্যাম্পাসলাইভ২৪ ডটকম: বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ক্ষেত্রে একজন প্রক্টরের দায়িত্ব ও ক্ষমতা কতটুকু?
আমজাদ আলী: বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন প্রক্টরের প্রধান দায়িত্ব হলো শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা। এছাড়া কোনো শিক্ষার্থী যেন নিরাপত্তাহীনতায় না ভোগে, কেউ অপরাধ করলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধান অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হিসেবে দৈনন্দিন আপনাকে কী কাজ করতে হয়?
আমজাদ আলী: বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হিসেবে দৈনন্দিন অফিসিয়াল কাজ কর্মের পাশাপাশি ছাত্র/ছাত্রীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট কাজ করে থাকি।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টরের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বিব্রতকর কোনো পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন কি-না?
আমজাদ আলী: অনেক সময়ই বিব্রতকর পরিস্থিতির শিকার হতে হয়েছে। হলে অথবা অন্য কোথাও  ঝামেলা হলে আমি সেখানে গেলেও অনেকের মনভূত হয় না। মনে হয় আমরা সেখানে গিয়েই ভুল করেছি।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে আলোচিত কোনো ঘটনা মিডিয়া ভিন্ন আঙ্গিকে দেখে, এ ব্যাপারে আপনার মন্তব্য কী?
আমজাদ আলী: বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে আলোচিত ঘটনা যেমন অভিজিৎ হত্যাকাÐ, পহেলা বৈশাখে টিএসসিতে নারী নীপিড়নের ঘটনা উল্লেখযোগ্য। যখন এসব ঘটনা সংঘটিত হয়েছে তখন সেখানে পুলিশ উপস্থিত ছিলো। তারা ইচ্ছা করলে যে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারতো। কিন্তু তাদের সামনে দিয়ে কীভাবে খুনিরা পার পেয়ে যায়? মিডিয়া এসব ঘটনা যেভাবে  প্রচার করছে এতে আমাদের কিছু করার থাকে না। যদি কেউ কাউকে টার্গেট করে সেটাকে পুরোপুরি রক্ষা করা যায় না।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: নব-প্রতিষ্ঠিত বিজয় একাত্তর হলে রাজনীতিমুক্ত হলেও সেখানে রাজনীতি ঢুকেছে, এ বিষয়ে আপনার বক্তব্য কী?
আমজাদ আলী: বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো হল রাজনীতিমুক্ত নয়। নতুন হলে রাজনীতি না করার ব্যপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তাই রাজনীতি চলবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো জঙ্গীবাদকে ছাড় দেয়া হবে না।

ক্যাস্পালাইভ২৪ডটকম: বিভিন্ন সময় মেয়েদের হলে প্রবেশ এবং বাহির নিয়ে সমালোচনা শোনা যায় এ বিষয়ে আপনার মতামত কী?
আমজাদ আলী: এক্ষেত্রে কেউ কোথাও ট্যুরে গেলে আসে রাত বারোটার সময়। তখন আমাকে ফোন দেয়া হলে আমি হলে ঢুকতে সহযোগীতা করি। এছাড়া কারো কোনো সমস্যা থাকলে হল প্রভোস্টের কাছে এ্যপ্লিকেশন দিয়ে অনুমতি নিতে হয়।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: অনেক সময় ক্যাম্পাসে সন্দেহজনকভাবে নীরিহ ছাত্রদের নির্যাতন করা হয়, এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য কী?
আমজাদ আলী: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শিবির, হিজবুত তাহরীরসহ অনেকগুলো সংগঠন নিষিদ্ধ। যদি এ সকল সংগঠনের কাউকে পাওয়া যায়, তখন তার উপর নির্যাতন চালানো হয়। অনেক সময় নীরিহ  শিক্ষার্থীরাও এ নির্যাতনের শিকার হয়।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: ক্যাম্পাসে সহ-অবস্থান সম্পর্কে আপনার বক্তব্য কী?
আমজাদ আলী: ক্যাম্পাসে সহ-অবস্থান আছে। যারা ছাত্র রাজনীতি করছে তাদেরকে অবশ্যই আমাদের ছাত্র হতে হবে। যারা ১০ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের হয়ে গেছে, তারা এখন ক্যাম্পাসে এসে রাজনীতি করবে- সেটা হতে পারে না।

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম: আমাদেরকে সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
আমজাদ আলী: ক্যাম্পাসলাইভকেও ধন্যবাদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউজগুলো গুরুত্বের সাথে পজেটিভভাবে প্রকাশের জন্য।

ঢাবি// এইচএন, ২৫ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// এইচএস