[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশী তরুণ গবেষকদের ক্যারিশমা


প্রকাশিত: October 15, 2015 , 12:44 pm | বিভাগ: আপডেট,ক্যাম্পাস,রিসার্চ


indonesia

সৈয়দা নিশাত নায়লা : হাজারো দ্বীপের দেশ ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায়  অনুষ্ঠিত হয়ে গেল  তৃতীয় এশিয়া প্যাসিফিক স্টুডেন্ট ফোরাম ২০১৫। তরুণ উদ্ভাবন এবং অর্থনৈতিক পরিবর্তনের মাধ্যমে দারিদ্র্য মোচন এবং টেকসই উন্নয়ন এই মূলমন্ত্র নিয়ে তরুণদের আহবান জানানো হয় এই সম্মেলনে।

১৭-২০ সেপ্টেম্বর ইউনিভার্সিটাস ইন্দোনেশিয়াতে ইউনিভারসাল ইয়ুথ এলায়ন্সের  (UYA) উদ্যোগে এপিএসএফ ২০১৫  এর আয়োজন করা হয়। বিশ্বের ৩০ টি দেশের ৬০৬ জন আবেদনকারীদের মধ্য থেকে ১২০ জন তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থী সম্মেলনে অংশগ্রহণের সুযোগ পায়। এই সুবর্ণ সুযোগটি লুফে নেই আমরা বাংলাদেশের একদল তরুণ শিক্ষার্থী। চারদিন ব্যপী এই সম্মেলনে গবেষণাপত্র উপস্থাপক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইইই বিভাগের ওয়ালিদ বিন হাবিব,  মৃত্তিকা পানি ও পরিবেশ বিভাগ এর তৃতীয় বর্ষ এর সৈয়দা নিশাত নায়লা (আমি), ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলোজি (আইউটি) এর ইইই বিভাগের তৃতীয় বর্ষ এর শিক্ষার্থী এমডি আশফাক উদ্দীন, ইউ আই ইউ এর মারিয়া ইয়াসমিন।
indonesia-2
সম্মেলনে পোস্টার উপস্থাপক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জুহায়ের আহমেদ কৌশিক। পাশাপাশি এ সম্মেলনে শ্রোতা প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণ করেছেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রিনাজুর রহমান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সুলাইমান রহমান এবং আই ইউ বি এর নেওয়াজ আকবর।

সারে চার ঘণ্টা ফ্লাইট বিলম্বের পরে সরাসরি হোটেল শান্তিকাতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেয় বাংলাদেশ দল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতেই থাকে পরিচিতিপর্ব এবং আকর্ষণীয় প্রীতিভোজ। ইউএনডিপি এর টেকসই উন্নয়ন (এসডিজি) এর ১৭টি লক্ষ্যমাত্রাকে মূলমন্ত্র ধরে দারিদ্র মোচনের উদ্দেশ্য নিয়ে অ্যাক্ট অফ রেনদম কাইন্ডনেস (এআরকে প্রকল্প) সংস্থাপন প্রস্থাবনা দেওয়া হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে।

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন সকাল থেকেই শুরু হয় গবেষণাপত্র উপস্থাপন। স্বাস্থ্য–প্রযুক্তি অধিবেশনে বক্তা হিসেবে থাকেন বাংলদেশের এমডি আশাফক উদ্দিন, তার প্রস্থাবনার মূল বিষয় ছিল প্রযুক্তি ও তরুণ উদ্ভাবন : নবায়নযোগ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশ ও বিশ্বের উন্নয়ন। ইতিপূর্বে আশফাক উদ্দিনের প্রোজেক্টটি তার বিশ্ববিদ্যালয়ে সেরা পোস্টার পুরষ্কার পায়। অপর উপস্থাপক ওয়ালিদ বিন হাবিবের উপস্থাপনার বিষয় ছিল ‘টেকসই পল্লী উন্নয়ন শক্তি : দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত কৌশল’। আমি এই সম্মেলনে অংশ নেই  ক্লাইমেট লিডার হিসেবে তাই যথারীতি আমার গবেষণা পত্রের বিষয় ছিল সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য শিক্ষা ও টেকসই পরিবেশ ( জলবায়ু পরিবর্তন রুখে দাড়াই ) ; স্মার্ট থিঙ্কিং স্ট্যান্ডার্ড লিভিং। ‘প্রকল্প ক্ষমতায়ন’ নিয়ে কথা বলেন মারিয়া ইয়েস্মিনএবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন কৌশল নিয়ে পোস্টার উপস্থাপন করেন জুহায়ের আহমেদ কৌশিক।

তৃতীয় দিনে ইন্দোনেশিয়ার সাংস্কৃতিক এবং উপজাতীয় নৃত্য প্রদর্শন করে সকলকে মুগ্ধ করেন ইউনিভার্সিটাস ইন্দোনেশিয়ার তরুণীরা। ইউওয়াইএ চেয়ারম্যান এবং ৩য় এশিয়া – প্যাসিফিক স্টুডেন্ট ফোরামের প্রকল্প অফিসার আসিয়া হানিফা শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

এছাড়াও সম্মেলন প্রোগ্রাম ডিরেক্টর হিসেবে বক্তব্য রাখেন ডিক ফেরিনো। সম্মেলনের বিভিন্ন সেশনে অতিথি বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাপানের কাগসীমা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রফেসর ড. কোজো ওবারা, ড. কসুকে হিশিমায়া। সম্মেলনে কী-নোট স্পিকার ছিলেন জাতিসংঘের সাবেক বিশেষ দূত (2003-2007) ইন্দোনেশিয়ান জনবসতি ও আঞ্চলিক উন্নয়ন  মন্ত্রী (1999-2001) ড. আইআর এরনা। দিনটি শেষ হয় এপিএসএফ২০১৫ এর ১৩ টি টিমের এআরকে প্রকল্পের প্রস্থাবনা দিয়ে।

চতুর্থ এবং শেষ দিনে থাকে জাকার্তা সিটি ট্যুর সেই সঙ্গে মোনাস ভ্রমণ। মোনাস ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতার স্মৃতিরক্ষায় নির্মিত জাতীয় স্মৃতিস্তম্ভ। শেষ তবু শেষ নেয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে বৈশ্বিক উন্নয়ন এবং দারিদ্র মোচনদের জন্য একজোট হয়ে কাজ করার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয় তরুণেরা।
indonesia-1

ছবি: ইন্দোনেশিয়ার তরুণীদের সঙ্গে লেখক
তরুণদের মধ্যে সেতু বন্ধনের মাধ্যমে বিবিধ বৈশ্বিক সমস্যার আলোচনা করা ছিল এই সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য। অসাধারণ এই অভিজ্ঞতার কথা বলে শেষ করব বাংলাদেশের তরুণদের অর্জন নিয়ে। জনপ্রিয় উপস্থাপকের খ্যাতি পান বাংলাদেশের মারিয়া এবং ওয়ালিদ। নিজেরদের উপস্থাপনার পরে যখন বিভিন্ন দেশের মেধাবীরা বলে তুমিই সেই বাংলাদেশি তোমার কথাগুলো খুব ভাল লেগেছে তখন নিজেকে সফল মনে হয়।  দেশ থেকে বহুদূরে নিজের দেশেকে প্রতিনিধিত্ব করা আসলেই গর্বের। আমরা তরুণেরা আশাবাদী এভাবেই বাংলাদেশকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবো।

লেখক, সৈয়দা নিশাত নায়লা
মৃত্তিকা পানি ও পরিবেশ বিভাগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা, ১৫ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// জেএন