[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



কাঁদলেন মাশরাফি, কাঁদলো বাংলাদেশ(ভিডিও)


প্রকাশিত: March 20, 2016 , 4:22 pm | বিভাগ: আন্তর্জাতিক খেলা,আপডেট,স্পোর্টস


 

স্পোর্টস লাইভ: সংবাদ সম্মেলন শেষে আর আটকে রাখতে পারলেন না চোখের পানি। অশ্রুসিক্ত হলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। অশ্রুসজল হলো বাংলাদেশ দল। অশ্রুজলে প্লাবিত হলো ৫৬ হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশ।

রোববার বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের সংবাদ সম্মেলন কক্ষ ত্যাগ করার সময়ই অশ্রুধারা বইতে শুরু করে তার চোখে। যা কোনো কিছুতেই বাঁধ মানছিল না। অঝোর ধারায় কাঁদছেন মাশরাফি। যেন এখনই দুই কূল ছাপিয়ে প্লাবিত হবে। ২০১১ সালের পর আবারো অশ্রুসজল মাশরাফিকে দেখা গেল।

পুরো দল হোটেলে চলে গিয়েছে। মাশরাফির হোটেলে ফেরার ব্যবস্থা ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে গাড়িতে। সেই গাড়িতেও অশ্রু সংবরণ করতে পারেনি বাংলাদেশের অধিনায়ক। নড়াইল এক্সপ্রেস শান্তনা দিয়ে থামাতে পারছিলেন না সুজন।

বাইরে থেকে সাংবাদিকরাও সাহস দিচ্ছিলেন। বারবার হাত দিয়ে চোখ মুছতে ছিলেন মাশরাফি। কিন্তু এ যে থামার নয়। কারণ এটি বেদনাহত, হৃদয় চূর্ণ হওয়ার অশ্রু। সংবরণের চেষ্টা সেখানে ব্যর্থ অস্ত্র। বিনা অনুমতিতে, আপন গতিতে ঝরে চলেছে তা।

শনিবার দুপুরের পর আইসিসি জানিয়েছে, অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের কারণে সাময়িক নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানিকে। খবরটি গোটা বাংলাদেশ দলের জন্যই ছিল বড়সড় ধাক্কা। দলের অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফি মানতে পারছেন না তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা।

তার দৃষ্টিতে, তাসকিন সম্পূর্ণ ঠিক আছেন। বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে তরুণ তাসকিন ও আরাফাত সানিকে হারিয়েই আবেগের ফল্গুধারা বয়ে গেছে মাশরাফির কন্ঠে, চোখে।

অধিনায়ক মাশরাফির কান্না দেখে বিগলিত গোটা চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের উপস্থিত মানুষ। বিদেশি সাংবাদিক, স্টেডিয়ামের কর্মকর্তা কাকে রেখে কার কথা বলবেন। সবাই যেন মাশরাফির হৃদয়ভাঙা কাহিনীর অংশ। সমব্যথী তার অন্তরে ব্যথার, হৃদয়ের রক্ত ক্ষরণের।

ভারতের প্রসিদ্ধ বাংলা দৈনিক বর্তমানের সিনিয়র সাংবাদিক রবীন্দ্র চৌধুরী জয়। কলকাতার মানুষ। মানুষের কান্না দেখে রীতিমতো হাউমাউ করেই কেঁদে উঠলেন এ বাঙালি। বারবার বলছিলেন, এমন দৃশ্য আমি জীবনেও দেখিনি রে ভাই। দলের খেলোয়াড়দের জন্য এমন টান, এমন ভালোবাসা কোথাও দেখিনি। ক্রিকেট ইতিহাসে এ ঘটনা কোথাও হয়নি।

মাশরাফিকে নিয়ে গাড়িটা হুঁট করে হুইসেল দিয়ে চলে গেল। তার প্রস্থানের পরও সেই আবহের রেশ কাটেনি চিন্নাস্বামীতে। সবার মুখে মুখে ফিরছিল দ্বরাজ হৃদয়, দেশ প্রেমে অন্তঃপ্রাণ, সতীর্থদের আপন ভাইয়ের মতো আগলে রাখা মাশরাফির অকৃত্রিম ভালোবাসার কথা।

ক্রিকেট ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বার কাঁদতে দেখা গেল মাশরাফিকে। ২০১১ সালে ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ দল থেকে বাদ পড়ায় কেঁদেছিলেন বাংলাদেশের অমূল্য সম্পদ এ অধিনায়ক। রোববার মাশরাফির অশ্রুতে আবার ভিজলো চিন্নাস্বামীর মাটি।

 

ঢাকা, ২০ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এএইচ