[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



শরীর চাঙা করতে চাই একটু ঘুম


প্রকাশিত: March 20, 2016 , 11:06 pm | বিভাগ: আপডেট,ইয়াং স্টাইল


gouma

লাইভ প্রতিবেদক: আমাদের জীবনটা হাজারো কাজে ব্যস্ত। এই ব্যস্তজীবনে কাজের ফাঁকে একটু ঘুমের সময় বের করাটা বিলাসিতাই বটে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অল্প সময়ের একটু ঘুম শরীর চাঙা করে এবং ঘুমের সমস্যা দূর করে।

ঘুম বিশেষজ্ঞদের দাবি, দীর্ঘ সময়ের কাজের ফাঁকে সংক্ষিপ্ত এই ঘুম আমাদের মস্তিষ্কের কার্যক্রম নতুন করে শুরু করতে পারে এবং আমাদের সতর্ক থাকতে সাহায্য করে।

আবহমান কাল ধরে বাংলার কৃষকদের মধ্যে মাঠে-ঘাটে কাজের ফাঁকে দু-মুঠো খেয়ে একটু ভাতঘুমের চল রয়েছে। এতে ক্লান্তি দূর করে নতুন উদ্যমে আবারো কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ার শক্তি পাওয়া যায়। বাংলার এই ভাতঘুম বা স্পেনের সিয়েস্তার মতোই দুনিয়ার নানা অঞ্চলে ঘুমের এমন চল বহু আগে থেকেই ছিল।

আধুনিক সমাজে দিনের বেলায় এই একটু ঘুমিয়ে নেয়াকে বলা হচ্ছে- ‘পাওয়ার ন্যাপ’।

নতুন উদ্যম তো বটেই, গবেষকেরা বলছেন, দিনের বেলায় এমন একটু ভাতঘুম স্মরণশক্তির সক্ষমতা পাঁচগুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে। ইন্দো-এশিয়ান নিউজ এ খবর জানিয়েছে।

জার্মানির সারল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর আক্সেল মেকলিঙ্গার সাম্প্রতিক এই গবেষণার নেতৃত্ব দিয়েছেন।

নিউরোসাইকোলজি সাময়িকীতে প্রকাশিত ওই গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, দিনের বেলায় কাজের ফাঁকে ৪৫ থেকে ৬০ মিনিটের ঘুম স্মরণশক্তি প্রায় পাঁচ গুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে।

গবেষকেরা বলছেন, পূর্ণাঙ্গ ভাতঘুম হচ্ছে সময়, ব্যাপ্তি এবং সঠিকভাবে শোয়ার সমন্বিত রূপ।

অনেক গবেষক বলেন, ভাতঘুম আর গভীর ঘুমের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। ভাতঘুমের সময় একটু খাড়া হয়ে বসে ঘুমানোর পরামর্শ দেন গবেষকেরা। স্বাস্থ্যকর ভাতঘুমের জন্য সোফা বা কোচের ওপর শুয়ে কিংবা চেয়ারে আরাম করে বসা যেতে পারে।

ঘুমের সময়ের ব্যাপ্তি ও স্বাস্থ্যের জন্য তার উপকারিতা নিয়ে গণমাধ্যমে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে-

১০ থেকে ২০ মিনিট: শক্তি ও সতর্কতা বাড়ায়।
৩০ মিনিট: সিদ্ধান্ত গ্রহণের দক্ষতা বাড়ায়। হারানো শব্দভান্ডার মনে করতে কিংবা ভুলে যাওয়া কোনো নির্দেশ মনে করতে ৩০ মিনিট ঘুম যথেষ্ট।
৬০ মিনিট: ৬০ মিনিট টানা ঘুমাতে পারলে গভীর ঘুমের পর্যায়ে চলে যাওয়া যায়। এতে স্মৃতিশক্তি বাড়ে। এতে কারও নাম, চেহারা ও কোনো বিষয় সহজে মনে পড়ে।
৯০ মিনিট: ৯০ মিনিট ঘুমালে ঘুমের একটি পুরো চক্র পূর্ণ হয়। আবেগ এবং প্রক্রিয়াগত স্মৃতি ও সৃজনশীলতা উন্নত হয়। ঘুমের সমস্যা সমাধানে কাজ করে।

 

ঢাকা, ২০ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এএইচ