[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



ইন্টারন্যাশনাল লিডার অব টুমরো আমাদের সাহেরা


প্রকাশিত: May 3, 2016 , 11:43 am | বিভাগ: আপডেট,এচিভমেন্ট


sahara-live

লাইভ প্রতিবেদক : রাজধানীর আগা খান স্কুলের ছাত্রী সাহেরা ইসলাম। পরিচয়টা এখন আর এখানেই সীমাবদ্ধ নয়। কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়ার ইন্টারন্যাশনাল লিডার অব টুমরো (আইএলটি) অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন তিনি। এ অ্যাওয়ার্ডের অধীনে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বিনা খরচে স্নাতক কোর্স করার সুযোগ পাবেন তিনি। তার বাবা স্বনামধন্য চলচ্চিত্র নির্মাতা শহীদুল ইসলাম খোকন। তবে এএলএস নামের একটি কঠিন রোগে আক্রান্ত হন তিনি।

সবার মুখে হাসি ফিরিয়ে শপথ নেন ভালো কিছু করে দেখানোর। সাহেরা তখন ও-লেভেল (এসএসসি সমমান) পরীক্ষার্থী। সিদ্ধান্ত নেন বাকি সময়টুকু কাজে লাগাবেন।
সময়কে কাজে লাগানোর জন্য দুটি বিষয়ে গুরুত্ব দেন সাহেরা। পড়াশোনায় মনোযোগ বাড়ান। শুরু করেন টিউটর হিসেবে শিক্ষার্থী পড়ানোর কাজ।

২০১৪ সালের মে মাসে শুরু হয় ও-লেভেল পরীক্ষা। আট বিষয়ের ছয়টিতেই পান ‘এ স্টার’ মার্কস। দুটিতে ‘বি’। খবরটি শোনার পর বাবা খুব খুশি হন। বন্ধুরা দেখতে এলে বলতেন, ‘ছোট মেয়েটা আমার জন্য সুসংবাদ নিয়ে এসেছে।’

ও-লেভেল পরীক্ষায় ভালো করায় আগা খান স্কুল তার জন্য ‘এএস’ লেভেলে (একাদশ শ্রেণি) বৃত্তির ব্যবস্থা করে। মোট টিউশন ফির ৭৫ শতাংশ তার জন্য ছাড় দেয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ তার ফলাফল বিচার করে সর্বোচ্চ বৃত্তির ঘোষণা দেয়।’

স্কুলের এ ঘোষণায় আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায় সাহেরার। স্কুলের বিভিন্ন প্রোগ্রাম বাস্তবায়নে নিজেকে আত্মনিয়োগ করেন। স্কুলের সবার মাঝে বাড়তে থাকে তাঁর পরিচিতি। ‘এএস’ লেভেলে পরীক্ষায় পাঁচ বিষয়ের সবটিতেই ছিল এ, স্টার মার্কস। অসুস্থ বাবা শুনে খুশি হন।

জানা ছিল, কানাডার শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়ার ইন্টারন্যাশনাল লিডার অব টুমরোর (আইএলটি) অ্যাওয়ার্ডের কথা। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাছাইকৃত তরুণদের এ অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়, যারা পড়াশোনায় ভালো, আছে নেতৃত্বের গুণও। বাছাই করা হয় এ-লেভেল পরীক্ষার্থীদের থেকে।

গত বছর নভেম্বরে আগা খান স্কুল থেকে তিনজনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। এদের মধ্যে সাহেরা ইসলামও ছিলেন। ডিসেম্বরের ১০ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হয় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও তথ্য। বিভিন্ন দেশ থেকে জমা পড়ে ৬০০ আবেদন। প্রাথমিক বাছাইয়ে ৩০ জনকে নির্বাচন করা হয়। বাংলাদেশ থেকে ছিল শুধু সাহেরার নাম। ২ এপ্রিল ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়া ইমেইলে জানায় সুসংবাদ, আইএলটি অ্যাওয়ার্ডের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন সাহেরা।

আইএলটি অ্যাওয়ার্ড পাওয়ায় কানাডার শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় বিনা খরচে স্নাতক করতে পারবেন। সেখানে থাকা-খাওয়ার দায়িত্বও নেবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বছরে একবার বাংলাদেশ ভ্রমণের যাতায়াত খরচও দেবে তারা।

আইএলটি অ্যাওয়ার্ড কী : পড়াশোনায় মেধাবী ও নেতৃত্বদানে সক্ষম শিক্ষার্থীদের আইএলটি অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়ার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ স্কুলগুলো থেকে তিনজন করে শিক্ষার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। পড়াশোনা, পাঠ-বর্হিভূত কার্যক্রম এবং নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্যতা বিবেচনা করে দেওয়া হয় এ পুরস্কার। ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়ার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ স্কুলগুলোর কোনো শিক্ষার্থী আইএলটি অ্যাওয়ার্ড পেতে চাইলে প্রথমে স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানাতে হয়। আগ্রহী শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার নিয়ে তাদের যোগ্যতা বিবেচনা করে তিন শিক্ষার্থীকে নভেম্বর মাসে আইএলটি অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন দেয় স্কুল। মনোনীত হওয়া শিক্ষার্থীরা তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য ও কাগজপত্রসহ অনলাইনে আবেদন করে।

ঢাকা, ০৩ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন