[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



দারিদ্রজয়ী অদম্য শিল্পী বিজয়ার এত প্রতিভা!


প্রকাশিত: June 22, 2016 , 3:59 am | বিভাগ: আপডেট,এচিভমেন্ট,খুলনার ক্যাম্পাস


bijoya-live

যশোর লাইভ : অভয়নগর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী বিজয়া। সাত বছরে সংগীত প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে কমপক্ষে ৩১টি সার্টিফিকেট ও পুরস্কার অর্জন করেছে। দিনমজুরের মেয়ে হলেও অভাব তাকে দমিয়ে রাখতে পারেনি।

অদম্য শিল্পী বিজয়ার বাবা শিব শংকর বহু কষ্টে মেয়েকে গান শিখিয়েছেন। ২০০৭ সালে বিজয়া যখন ৩য় শ্রেণিতে পড়ে, তখন কোন প্রকার প্রশিক্ষণ ছাড়াই দেশাত্ববোধক গান গেয়ে অভয়নগর উপজেলায় প্রথম স্থান লাভ করে সে। পরের বছর দেশাত্ববোধক, লোক সংগীতে ৩য় স্থান লাভ করে। ২০১১ সালে উচ্চাঙ্গ সংগীতে বিজয়া উপজেলা পর্যায়ে প্রথম ও যশোর জেলা পর্যায়ে ২য় হয়। পরের বছর একই ইভেন্ট এ উপজেলায় প্রথম ও জেলায় ৩য় স্থান লাভ করে। ২০১৩ সালে উচ্চাঙ্গ সংগীতে ও নজরুলগীতিতে প্রথম স্থান লাভ করে বিজয়া। যশোর জেলাতে লাভ করে ৩য় স্থান। ২০১৪ সালে নজরুলগীতি ও উচ্চাঙ্গ সংগীতে উপজেলা পর্যায়ে ১ম ও জেলা লেবেলে লালনগীতিতে ৩য় হয়।

২০১৫ সালে বিজয়া অভয়নগর উপজেলায় রবীন্দ্র সংগীত, উচ্চাঙ্গ সংগীতে ১ম, নজরুল গীতিতে ৩য় এবং জেলা পর্যায়ে রবীন্দ্র সংগীতে ৩য় হয়। এ বছরও তার অবস্থান সে ধরে রেখেছে। অভয়নগর উপজেলা পর্যায়ে  বিজয়া উচ্চাঙ্গ সংগীত ও নজরুল গীতিতে প্রথম হয়েছে।

যশোর জেলার মধ্যে নজরুল গীতিতে ও উচ্চাঙ্গ সংগীতে ৩য় হয়েছে। ২০০৭ সাল থেকে টানা ৯ বছর বিজয়া সংগীতে তার সাফল্য ধরে রাখতে পেরেছে। কিন্তু অভাব তাকে পিছনে ঠেলে দিচ্ছে।

উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী অভয়নগর শাখার এ শিল্পী গান শেখার যন্ত্র ও সার্বক্ষণিক প্রশিক্ষক পেলে তার শিল্প প্রতিভা বিকশিত হতো। কিন্তু পিতার অভাব তাকে সেই স্বপ্ন থেকে দূরে ছুঁড়ে ফেলছে।

মঙ্গলবার সিঙ্গাড়ীতে এক সম্মাননা অনুষ্ঠানে কান্নাকাতরকণ্ঠে সে বলে বাবার অসামর্থ্য আমাকে কাঁদতে শেখায়নি, বাবা আমার জন্য কষ্ট করে। এটাই আমাকে ভাবিয়ে তোলে, মনকে নাড়া দেয়।

ঢাকা, ২২ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন