[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



জঙ্গিবাদ : নজর এবার শাহাজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস


প্রকাশিত: July 20, 2016 , 3:23 pm | বিভাগ: এক্সক্লুসিভ,পাবলিক ইউনিভার্সিটি


sust-live-45

লাইভ প্রতিবেদক : দেশজুড়ে জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযান চলছে। জঙ্গিবাদ রুখে দেয়ার প্রত্যয় নিয়ে চলছে বিক্ষোভ, সভা, সেমিনার ও সচেতনতামূলক আলোচনা। আর এরই মাঝে সিলেটের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এসেছে। গুলশান ও শোলাকিয়ায় হামলার পর দেশের যে কয়েকটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গোয়েন্দা নজরদারির আওতায় আনা হয়েছে তার মধ্যে শাবি অন্যতম।

অাধ্যাতিক শহর হওয়ায় ধর্মীয় অনুভূতি কাজে লাগিয়ে নিষিদ্ধঘোষিত বেশ কয়েকটি সংগঠন তৎপর রয়েছে সিলেটে। তাদের প্রধান টার্গেট শাবি। এ ক্যাম্পাসের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীদের টার্গেট করা হচ্ছে। হিজবুত তাহরিের সঙ্গে গোপনে তাদের সম্পৃক্ত করা হচ্ছে। এদিকে নতুন করে শাবিতে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সম্পৃক্ততা খুঁজে পেয়েছে গোয়েন্দারা। নিষিদ্ধ ওই সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগে ইতিমধ্যে শাবি ক্যাম্পাস থেকে এক ছাত্রকে আটক করা হয়েছে।

আটক আবদুল আজিজ ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং (আইপিই) বিভাগের ছাত্র। জঙ্গি সংগঠন আনাসারুল্লাহ বাংলা টিমের সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করতেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। সোমবার ওই শিক্ষার্থীকে সিলেট থেকে ঢাকা আনা হয়েছে।

ডিএমপি উপকমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, আব্দুল আজিজ আনসারুল্লাহ বাংলা টিম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সমন্বয়কের কাজ করতেন বলে আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে। অধিকতর জিজ্ঞসাবাদের প্রয়োজনেই তাকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সিলেটের পুলিশ কমিশনার কামরুল আহসান জানান, ঢাকা থেকে আসা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের সদস্যরা জঙ্গি সন্দেহে আব্দুল আজিজকে আটক করে ঢাকা নিয়ে গেছেন।

আব্দুল আজিজের বাড়ি সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে। সিলেটে একটি বাড়িতে লজিং থেকে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতেন।

তবে তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন কিনা সে তথ্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে শাবিতে এতোদিন হিজবুত তাহরিরের কর্মকাণ্ড রয়েছে বলে ধারণা করা হলেও আবদুল আজিজ গ্রেফতারের পর সে ধারণা অনেকটা পাল্টে গেছে। শুধু হিজবুত নয় অন্যান্য জঙ্গি সংগঠনের কার্যক্রমও এ বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতে পারে বলে গোয়েন্দাদের কড়া নজরদারি শুরু হয়েছে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকেও এব্যাপারে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কোন শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ অনুপস্থিত রয়েছেন কিনা তা পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করার কথা বলা হয়েছে। কোন শিক্ষার্থী কিংবা শিক্ষকের বিষয়ে সন্দেহ হলে তা সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করার কথা বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মগজ ধোলাই দিয়ে একের পর এক তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীদের উগ্র জঙ্গিবাদে উৎসাহিত করছে হিজবুত তাহরির নামে একটি সংগঠন। ওই সংগঠনের প্রধান টার্গেট শাবি।

গত কয়েক বছরে সিলেটের বেশ কয়েকটি এলাকায় হিজবুত তাহরিরের অন্তত ডজন খানেক কর্মীকে আটক করা হয়েছে যাদের অধিকাংশই শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। এবিষয়টি মাথায় রেখেই শাবিকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

ঢাকা, ২০ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন