[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



মার্কিন নাগরিকের নামের রহস্য ও ছবি নিয়ে টানাটানি


প্রকাশিত: July 27, 2016 , 9:17 pm | বিভাগ: এক্সক্লুসিভ


sabbir-sajid
লাইভ প্রতিবেদক: কল্যাণপুরে নিহত দুই নাম ও ছবি নিয়ে রশি টানাটানি চলছে। তবে অপর নামের ব্যাপারে নিশ্চিত পরিবার।
তবে পুলিশ নিশ্চিত এরা সকলেই অভিজাত পরিবারের সন্তান। পড়া শুনাও করেছে নামি দামি প্রতিষ্ঠানে। অর্কের নাম র‌্যাবের তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই বিতর্ক চলছিল। নানান হিসাব-নিকাশও চলছিল পুলিশ ও গোয়েন্দাদের। কিন্তু মারা যাওয়ার দুই দিন পরেও তার কোন কুলকিনারা হয়নি।
র‌্যাবের তালিকায় থাকা ১৯৫ নম্বর ব্যক্তির নামের ঘরে লেখা হয়েছে শেহজাদ রউফ ওরফে অর্ক। বাবার নাম ২৬ নম্বর তালিকার মতই লেখা আছে তৌহিদ রউফ। তবে ঠিকানার ঘরে লেখা হয়েছে ‘রারিধারা, ওয়ার্ড ১৮, গুলশান ঢাকা। এই শেহজাদ রউফও আমেরিকার নাগরিক এবং তার পাসপোর্ট নম্বরও ‘সাজাদ রউফ’ এর মতই ৪৭৬১৪৫৯৯২। সেজাদ ওরফে শেহজাদ যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। ঢাকা মেডিকেলে লাশ শনাক্তের সময় তার বাবার সঙ্গে ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের একজন কর্মকর্তাও ছিলেন।
এদিকে ডিএমপির উপকমিশনার মাসুদুর রহমান বুধবার ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, “তৌহিদ রউফ আমাদের কাছে এসে বলেছেন, শেহজাদ আমার ছেলে। আমরা ছবি দেখে ধারণা করছি। সকালে ময়নাতদন্তের পর নয়টি লাশই ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে রয়েছে। সন্তানের লাশ শনাক্তে সেখানে গিয়ে যাওয়া হয় তৌহিদকে।
ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, “উনি এসেছেন, ডেডবডি দেখেছেন। নাকে তিল এবং কানটা একটু বাঁকা তার ছেলের, এই লাশেরও তা রয়েছে। তবে সন্দেহ করেছেন যে তার ছেলে শুকনা মনে হচ্ছে।”

sajad
তৌহিদ সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা লাশ দেখেছি। চেহারায় পুরোপুরি মিল নেই। ডিএনএ টেস্টের প্রয়োজন রয়েছে।”
ফরেসনসিক বিভাগের অ্যাসিট্যান্ট প্রফেসর সোহেল তাকে (তৌহিদ) বলে দিয়েছেন, প্রয়োজনে ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে পরিচয় নিশ্চিত করতে হবে।
সংশ্লিস্টরা জানান, শেহজাদ গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালানোর পর কমান্ডো অভিযানে নিহত নিবরাজ ইসলামের বন্ধু। তারা দুজনই ঢাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ও মালয়েশিয়ার মোনাশ ইউনিভার্সিটিতে পড়েছিলেন একসঙ্গে। শাহবাগ থানার একটি মামলাতে দুজনই আসামি ছিলেন।
রাজধানীর বসুন্ধরা এলাকার বাড়ি থেকে সাজাদ গত ৬ ফেব্রুয়ারি বেরিয়ে যাওয়ার পর আর ফেরেননি জানিয়ে তার বাবা ভাটারা থানায় জিডি করেছিলেন। নিবরাজও ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিলেন বলে তার পরিবারের ভাষ্য। এরপর ১ জুলাই গুলশানের ক্যাফেতে নিহত হওয়ার পর জানা যায়, তিনি ফেব্রুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত ঝিনাইদহের একটি মেসে ছিলেন।
ওই মেসে নিবরাজের আরেক সঙ্গী আবীর রহমানও ছিলেন, যিনি ৭ জুলাই ঈদুল ফিতরের দিন শোলাকিয়ায় পুলিশের উপর হামলা চালানোর পর গুলিতে নিহত হন। নিবরাজের মতো আবীরও নিখোঁজ ছিলেন কয়েক মাস ধরে। তাদের সঙ্গে ওই মেসে যে আটজন ছিলেন, তাদের মধ্যে সাজাদও ছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

121-380x253
নিহতদের অষ্টম যুবককে নিজেদের সন্তান বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীর দুটি পরিবার:

রাজধানীর কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের অভিযানে নিহত ৯ জনের একজন সাব্বিরুল হক কণিক চট্টগ্রামের। সে গোল্ডেন জিপিএ পেয়ে সরকারি মুসলিম হাই স্কুল থেকে ২০১০ সালে এসএসসি এবং ২০১২ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন।

 

সে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বরুমচড়ার সাবেক আওয়ামী লীগ নেতার ছেলে। তার নাম সাব্বিরুল হক কণিক (২২) বলে ধারণা করা হচ্ছে। আনোয়ারা থানা পুলিশের একটি দল মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে কণিকদের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে খবর নিয়েছে।

 

অভিযানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক জঙ্গি হাসান নিহত ৯জনের মধ্যে ৮জনের নাম জানিয়েছে। তার বর্ণনায় সাব্বিরুল হক কণিকের নাম সাব্বির বলে উল্লেখ রয়েছে। তাছাড়া পুলিশও নিহতদের ছবি প্রকাশ করে তাদের পরিচয় জানতে চেয়েছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে আনোয়ারা থানার ওসি আবদুল লতিফ বলেন, সাব্বিরের পরিবারের সঙ্গে কথা হয়েছে। তার বাবা-মা ধারণা করছে এটা সাব্বিরের লাশ হতে পারে। তবে, ময়না তদন্তের পর আরও বিস্তারিত জানা যাবে।

6-380x253

জানা যায়, আনোয়ারার বরুমচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আজিজুল হক চৌধুরী রাশেদের ছেলে কণিক চার মাস ধরে নিখোঁজ ছিল। সন্তান বিপথগামী হয়েছেন বুঝতে পেরে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় নিখোঁজ সংক্রান্ত সাধারণ ডায়েরিও করা হয়নি।

 

কণিকের বাবা আজিজুল হক এলাকায় ভালো মানুষ হিসেবে পরিচিত। তিনি সপরিবারে চট্টগ্রাম শহরে বাস করেন। চাকরি করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে। তার বড় ভাই মোজাম্মেল হক চৌধুরী একজন মুক্তিযোদ্ধা। আজিজুল হকের সন্তান এভাবে জঙ্গি কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়বে, এলাকার মানুষের কাছে তা অবিশ্বাস্য মনে হচ্ছিল।

 

আজিজুল হক চৌধুরী ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমাদের পরিবার বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী। এমন পরিবারের সন্তান হয়ে কণিকের বিপথগামী হওয়া বড়ই কষ্টের। ভয়, শঙ্কা আর লজ্জায় এ ব্যাপারে এতদিন জিডি করেননি বলে জানান তিনি।

 

পারিবারিক সূত্র জানায়, কণিক চট্টগ্রামের ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটিতে (আইআইইউসি) ইকনোমিক অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ছাত্র ছিলেন। গোল্ডেন জিপিএ পেয়ে সরকারি মুসলিম হাই স্কুল থেকে ২০১০ সালে এসএসসি এবং ২০১২ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন।

 

জানা যায়, তাবলিগের কথা বলে মাঝে মাঝে সপ্তাহ-দশদিনের জন্য উধাও হয়ে যেতেন। বছরখানেক আগে একবার তিন মাসের জন্য নিরুদ্দেশ থাকার পর বাসায় ফিরে আসেন। সর্বশেষ চার মাস আগে রাউজানে এক বিয়েতে যাওয়ার কথা বলে বাবার কাছ থেকে পাঁচশ টাকা নিয়ে বের হন। সেই থেকে কণিক নিখোঁজ। দীর্ঘদিন কোনো খোঁজ না থাকায় সন্তানের আশা এক প্রকার ছেড়েই দিয়েছিলেন বাবা-মা ও পরিবারের সদস্যরা। সন্তান নিজে বিপথগামী হয়েছেন বুঝতে পেরে নিখোঁজ সংক্রান্ত সাধারণ ডায়েরি করারও প্রয়োজন মনে করেননি তারা।

 

সম্প্রতি ‘আইডি নাম্বার দুই’ নামে ফেইসবুকের একটি ভুয়া আইডি থেকে তার কিছু তৎপরতা স্বজনদের কাছে ধরা পড়ে। ওই আইডি থেকে জানান, তিনি বিয়ে করেছেন। কিন্ত কোথায় আছেন, কেমন আছেন কিছুই বলেননি।

সাব্বিরের পিতা আজিজ! :
যে ছবির যুবককে সাব্বির বলছেন তার বাবা আজিজুল, সেই ছবির যুবককে নিজের সন্তান জোবায়ের হোসেন বলে দাবি করছেন নোয়াখালীর সদর উপজেলার পশ্চিম মাইজদীর আব্দুল কাইউম।

8-380x253

জোবায়ের নোয়াখালী সরকারি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। গত ২৫ মে থেকে তিনি নিখোঁজ জানিয়ে গত ১২ জুলাই থানায় জিডি করে তার পরিবার। পুলিশ খবর দেওয়ার পর সুধারাম থানায় গিয়ে নিহত ৯ জনের ছবি দেখে একজনকে নিজের ছেলে জোবায়ের বলে দাবি করেন কাইউম। এরপর তিনি ঢাকায় রওনা হন।

 

কাইউম জানান, গত ২৫ মে তার ভাস্তে বাহাদুরের সঙ্গে বেরিয়ে যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ জোবায়ের।
নোয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ কে এম জহিরুল ইসলাম বলেন, “জোবায়েরকে জঙ্গি সন্দেহে পুলিশ খুঁজছিল। তার চাচাত ভাই বাহাদুরের বিষয়েও খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।”
এদিকে ডিএমপির উপকমিশনার মাসুদুর রহমান ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, নিহতদের মধ্যে সন্তান রয়েছে বলে যারা দাবি করছেন, তাদের ঢাকায় আসতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, তারা মৃতদেহ দেখে পরিচয় নিশ্চিত করবে। যদি তাতে নিশ্চিত করা না যায় তাহলে ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে পরিচয় বের করা হবে।”

 

 

ঢাকা,২৮ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এএম