[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



বর্ণাঢ্য অায়োজনে আওয়ামী লীগের সম্মেলন শুরু


প্রকাশিত: October 22, 2016 , 10:24 am | বিভাগ: আপডেট,পলিটিক্স


hasina-live

লাইভ প্রতিবেদক : বর্ণাঢ্য আয়োজনে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন শুরু হয়েছে। রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ‌্যানে
শনিবার সকালে সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ দেশের কাতারে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন পূরণে ‘সহায়ক নেতৃত্ব’ বের করে আনার পরিকল্পনা নিয়ে এই সম্মেলনে বসেছে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দেওয়া দলটি।

জাতীয় সঙ্গীতের সঙ্গে জাতীয় ও দলীয় পতাকা তোলার পর পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

উদ্বোধনী পর্বের পর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে বসবে রুদ্ধদ্বার কাউন্সিল অধিবেশন, যাতে পরবর্তী কর্মপন্থা ও নতুন কমিটি গঠন করা হবে।

দেশের অন‌্যতম প্রাচীন ও বড় দল আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার কারণে তারা সম্মেলনে কী সিদ্ধান্ত নেয় এবং তা বাস্তবায়নের ভার কাদের উপর দেয়, সেদিকে দৃষ্টি এখন সারা দেশবাসীর।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দলকে গত ৩৫ বছর ধরে নেতৃত্ব দিয়ে আসা তার কন‌্যা শেখ হাসিনা সম্প্রতি বলেছেন, অবসরে যাওয়ার সুযোগ পেলে তিনি ‘খুশি’ হবেন।

তবে দলীয় নেতারা বলে আসছেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

শেখ হাসিনা কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি গঠনের কথা বললেও দলের নেতারা তার দিকেই তাকিয়ে আছেন।

সম্মেলনের আগে নেতাকর্মীদের মধ‌্যে সবচেয়ে বেশি আলোচনা চলছে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে। সভাপতির পর সাংগঠনিক দিক দিয়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই পদে গত দুই বারের সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামই থাকছেন, না নতুন কোনো মুখ দেখা যাবে- সে প্রশ্ন ঘুরছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ‌্যমগুলোতেও।

এছাড়া জাতীয় কমিটি, সভাপতিমণ্ডলী ও কার্যনির্বাহী পরিষদের পুনর্গঠন প্রক্রিয়ায় কারা বাদ পড়ছেন, নতুন কারা যোগ হচ্ছেন- সে প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টায় নেতা-কর্মীদের মুখে মুখে ঘুরছে অনেকের নাম।

তবে কাউন্সিলে খুব বেশি পরিবর্তন আসছে না বলেই ইঙ্গিত মিলেছে সাধারণ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফের কথায়।

সম্মেলনের আগের রাতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব‌্যবস্থায় কাউন্সিলে খুব বেশি পরিবর্তন হয় না। এটা ইনক্রিমেন্টাল হয়। যারা বৃদ্ধ হয়ে গেছেন, বা অসুস্থ আছেন, তাদেরকে বাদ দিয়ে নতুন ইনডাক্ট করা হয়। প্রবীণ-নবীণের সমন্বয়েই নতুন কমিটি করা হবে।”

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা কাউন্সিল সফলভাবে করব। এর মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে। সরকার তো দারিদ্র্য বিমোচনে কাজ করবেই। দলের পক্ষ থেকেও সহযোগিতা করতে হবে, যাতে আমরা এই কাজগুলো সুষ্ঠুভাবে করতে পারি।”

ঢাকা, ২২ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন