[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



ইবিতে মাদকসেবীদের পিটুনিতে বাস চালক গুরুতর আহত


প্রকাশিত: October 23, 2016 , 8:53 pm | বিভাগ: আপডেট,খুলনার ক্যাম্পাস,পাবলিক ইউনিভার্সিটি


IU

ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বহনকারী একটি বাসের চালক ও হেলপারকে পিটিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদকসেবী একটি গ্রুপ। এই গ্রুপে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের কয়েকবার ফেল করা শিক্ষার্থীসহ বহিরাগতরাও রয়েছে।

রোববার দুপুর ২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান এই গ্রুপের হামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বহনকারী এই বাসের চালক ও হেলপার মারাত্মক ভাবে আহত হলে তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও বাসচালক জানায়, রোবাবার দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বহনকারী মিঠুন পরিবহন (কুষ্টিয়া ব-০২০০০৫) নামের একটি বাস কুষ্টিয়ার পেয়েরাতলা থেকে ক্যাম্পাসের উদ্দেশ্যে ফিরছিল। পেয়েরাতলা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র তরঙ্গ তার প্রেমিকাকে নিয়ে ছাত্রীদের ওই বাসে ওঠে।

বাসটি ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকে পৌছালে হেলপার তাকে নামতে বলে। তরঙ্গ সেখানে না নেমে ক্যাম্পাসের ভিতরে নামবে বলে বাসে বসে থাকে। এসময় বাসের হেলপার রনি ছাত্রীদের বাস থেকে তাকে নেমে যেতে অনুরোধ করে। রনি বলেন, আমি তাকে গেটে নামতে বলি। তাকে বলি, মামা এ বাসে মেয়েরা যায়। খালাম্মারা আপনাকে এ বাসে দেখলে আমাদের বকবে।”

এতে তরঙ্গ হেলপারের উপর ক্ষিপ্ত হয়। এসময় তরঙ্গ ও হেলপার রনি বাকবিতন্ডে জড়িয়ে পরে। একটু পরেই তাকে দেখে নেওয়ার কথা বলে বাস থেকে নেমে যায় তরঙ্গ।

দুপুর ২টায় বাসটি ছাত্রীদের নিয়ে কুষ্টিয়ার উদ্দেশ্যে ক্যাম্পাস ছাড়ার সময় তরঙ্গ মাদকসেবীদের নিয়ে প্রদান ফটকের ভিতরে বাসটি আটকে দেয়। এসময় মাদকসেবী গ্রুপের তরঙ্গ এবং ক্যাম্পাসে মাদকদ্রব্য সহবরাহকারী ও বহিরাগত মোহাইমিনুল ইসলাম লামনের নির্দেশে আজম (হিসাব বিজ্ঞান, শিক্ষাবর্ষ ০৯-১০), জ্যাকি (কম্পিউটার, ০৮-০৯), যুবায়ের হোসেন (আরবী ১২-১৩ শিক্ষাবর্ষ), তৌফিকুর রহমান তুষার (ইতিহাস ১৩-১৪) সহ কয়েকজন কিল ঘুষি মেরে তাদেরকে রক্তাক্ত করে ফেলে।

এসময় পরে অন্য বাসের ড্রাইভার ও শিক্ষার্থীরা তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যায়। মাদকসেবী এ গ্রুপটি এর আগেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন শিক্ষকার্থী, কর্মকর্তার-কর্মচারীরর সাথে খারাপ আচারন করেছে বলে অভিযোগ আছে।

এ বিষয়ে তরঙ্গ বলেন,“ আমি অসুস্থ বলেই ক্যাম্পাসের মধ্যে নামতে চেয়েছি। এসময় তারা আমার সাথে খারাপ করে। আমি খারাপ ব্যাবহারের জন্য পরিবহন প্রশাসককে বলবো বলে জানালে তারা স্যারকে নিয়েও খারাপ কথা বলে। তারপরই আমরা তাদের সাথে এসমন আচারন করি।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্ররিবহন প্রশাসক প্রফেসর আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুক ব্যাবস্থা নিবে।”
এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর রুহুল আমিন বলেন, ‘ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। চিহ্নিত হলে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// আইএইচ