[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



যে কারণে সিআইইউ শিক্ষার্থীর সুনাম বেড়েছে


প্রকাশিত: October 29, 2016 , 4:24 pm | বিভাগ: আপডেট,ক্যাম্পাস,চট্টগ্রামের ক্যাম্পাস,প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি


Zishan2+cl

চট্টগ্রাম লাইভ: জিসান মাহমুদ। একটি নাম। একটি মেধা। বিশ্ব ব্যাংকের প্রকল্পে নাম করেছে জিসান। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ জনসম্পদ গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সরকার এবং বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তা ও আন্তর্জাতিক পরামর্শক সংস্থা আর্নস্ট এন্ড ইয়ং-এর তত্ত্বাবধানে পরিচালিত লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্ন্যান্স (এলআইসিটি) প্রকল্পে বিশেষ স্বাক্ষর রেখেছে চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির (সিআইইউ) শিক্ষার্থী জিসান মাহমুদ।

তিনি এই প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্সে গোটা দেশ হতে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ন্যাসকম, আর্নস্ট এন্ড ইয়ং ও সরকারের পক্ষে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি)-এর তত্ত্বাবধানে পরিচালিত অনলাইন ভিত্তিক ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ক এই পরীক্ষায় সারা দেশ থেকে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। এরমধ্যে সিআইইউ’র ছাত্র জিসান মাহমুদ তৃতীয় স্থান অধিকার করেন।

এর আগে আর্নস্ট এন্ড ইয়ং প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে সাড়ে ৩ হাজার শিক্ষার্থীকে ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ে প্রায় ৬ মাস ধরে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। পরীক্ষায় বিশেষ কৃতিত্বের জন্য জিসান মাহমুদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জর্জ ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বীকৃত ‘সার্টিফিকেট অব এ্যাচিভম্যান্ট’ অর্জন করেন।

সিআইইউ’র মার্কেটিং বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মাহমুদ হাসান জানান, এটি খুবই ভালো একটি অর্জন। এ ধরনের আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণ এবং সনদপত্র আমাদের শিক্ষার্থীদের বড় বড় কর্পোরেট হাউসগুলোতে চাকরি পেতে সহায়ক হবে। সরকার এবং বিশ্বব্যাংকের এই উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই।

২০১৫ সালের ১৭ নভেম্বর বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে বিসিসি এবং আর্নস্ট এন্ড ইয়ং এর সাথে স্বাক্ষরিত ত্রিপক্ষীয় চুক্তির ভিত্তিতে চট্টগ্রামের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে শুধুমাত্র চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি এই প্রকল্পে অংশগ্রহণের সুযোগ লাভ করে।

 

ঢাকা, ২৯, অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// এএসটি