[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



খুবির ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের দানা বাঁধছে


প্রকাশিত: November 1, 2016 , 8:33 am | বিভাগ: আপডেট,ক্যাম্পাস,খুলনার ক্যাম্পাস,পাবলিক ইউনিভার্সিটি


KU

খুবি লাইভ: খুবির ছাত্রীর মৃত্যু নিয়ে ক্রমেই রহস্যের দানা বাঁধছে। কেন, কি কারণে, কাদের দ্বারা এমন মৃত্যু হলো এনিয়ে চলছে তদন্ত। পুলিশ ও গোয়েন্দারা এব্যাপারে তেন কোন অগ্রগতি দেখাতে পারেনি। তারা হিসাব মিলাতে পারছেন না। গত দুই দিনেও পুলিশ ওই ছাত্রীর মৃত্যুর ব্যাপারে কোন তথ্য দিতে পারেনি। পুলিশের ধারনা এটা প্ররোচনাজনিত আত্মহত্যা।

 

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী নাবিলা রহমানের (২১) রহস্যজনক মৃত্যু হয়। রোববার রাত ৭টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী একটি মেসে এ ঘটনাটি ঘটে। সে বাগেরহাট জেলা সদরের কাড়াপাড়া ইউনিয়নের মৃত মতিয়ার রহমানের মেয়ে।

জানা গেছে, নাবিলা রহমান খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী একটি ছাত্রী মেসে থাকতেন। রোববার সন্ধ্যায় তিনি ওই মেসের একটি কক্ষে গলায় ফাঁস দেন। এ সময় তার মেসের রুমমেটরা কক্ষের বাইরে ছিলেন।

তারা মেসে আসার পর কক্ষের দরজা বন্ধ দেখে তাদের সন্দেহ হয়। পরে দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দায়িত্ব পালনরত খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কনস্টেবল সানোয়ার আহমেদ জানান, মৃত অবস্থায় নাবিলাকে হাসপাতালে আনা হয়।

তবে কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে তা তিনি জানাতে পারেননি। হরিণটানা থানা পুলিশ জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড সাইন্স’র ৪র্থ বর্ষের ছাত্রী নাবিলা রহমান খানজাহান নগরের জনৈক বাবুর বাড়ির একটি রুম নিয়ে ভাড়া থাকতো। রোববার সন্ধ্যায় গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে মর্মে তার সহপাঠীরা তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে এ বিষয়ে এখনও সঠিক কোনো কিছু জানা যায়নি। তার ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলে সংশ্লিস্টরা জানিয়েছেন।

এদিকে পুলিশ মৃত নাবিলা রহমানের ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক মিডিয়া থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করছে। কারো সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তার সহপাঠি কয়েকজন ছাত্র ও ছাত্রীকে। বিশেস করে মেসের কয়েকজনকে পুলিশ কয়েকদফা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তবে সন্দেহের দানা রয়েই গেছে।

 

ঢাকা, ০১ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// এএসটি