[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



চবির ১২২ কোটি বাজেট পেশ : অযোগ্যদের শিক্ষক নিয়োগ দেয়ায় ক্ষোভ


প্রকাশিত: July 3, 2014 , 4:52 pm | বিভাগ: এডমিনস্ট্রেশন


চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
মেয়াদোত্তীর্ণ প্রতিনিধিদের নিয়ে আবারও অনুষ্ঠিত হলো চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট অধিবেশন। গতকাল দুপুর সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ২৪তম সিনেট অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। অধিবেশনে ২০১২-১৩ অর্থবছরের জন্য ১২২ কোটি ৫০ লাখ টাকার মূল বাজেট এবং ২০১১-১২ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট অনুমোদিত হয়। অধিবেশনে অযোগ্যদের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ায় সিনেট সদস্যরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর আনোয়ারুল আজিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিনেট অধিবেশনে সংসদ সদস্য মঈন উদ্দীন খান বাদল, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সালাহ উদ্দিন আকবরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় সভাপতির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য গত এক বছরের সাফল্য তুলে ধরেন। এরপর ২০১২-১৩ অর্থবছরের মূল বাজেট এবং ২০১১-১২ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট পেশ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ও সিনেট সচিব প্রফেসর ড. সফিউল আলম।
সিনেট সূত্র জানায়, এবার ইউজিসির কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের চাহিদা ছিল ১৫৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। কিন্তু বরাদ্দ দেয়া হয় ১২২ কোটি ৫০ লাখ টাকা, যা চাহিদার চেয়ে ২৫ শতাংশ কম। বাজেটের মোট বরাদ্দের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়
মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) দেবে ১০৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা। বাকি ১৪ কোটি টাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ আয় থেকে আসবে বলে বাজেটে দেখানো হয়েছে।
বাজেটে উল্লেখযোগ্য খাতগুলো হলো শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন খাতে ৮১ কোটি ১০ লাখ টাকা, পেনশন খাতে ১৭ কোটি টাকা, সাধারণ আনুষঙ্গিক খাতে ১২ কোটি ৪০ লাখ টাকা, শিক্ষা খাতে ৯ কোটি টাকা, মেরামত, সংরক্ষণ ও পুনর্বাসন খাতে ১ কোটি ৭০ লাখ টাকা এবং মূলধন মঞ্জুরি (সম্পদ সংগ্রহ ও ক্রয়) খাতে ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা।
এদিকে সিনেট অধিবেশনে বিশ্ববিদ্যালয়ে অযোগ্যদের তড়িঘড়ি করে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন ড. গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়া। তিনি অভিযোগ করেন, শিক্ষক নিয়োগের যোগ্যতা নির্ধারণে বিভিন্ন পর্ষদ ও শিক্ষকদের মতামত নেয়ার নিয়ম থাকলেও তা মানা হয়নি।
অধিবেশনে ড. সিদ্দিক আহমেদ চৌধুরী ও আ ন ম মুনির আহমেদ চৌধুরী সভাপতির আলোচনায় বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করলেও স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমানের স্মরণ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
উল্লেখ্য, সিনেটে বর্তমানে সদস্য আছেন ৭১ জন। চাকসু নির্বাচন নিয়মিত অনুষ্ঠিত না হওয়ায় সিনেটে কোনো ছাত্র প্রতিনিধি নেই। এছাড়া রেজিস্টার্ড গ্রাজুয়েট প্রতিনিধির ২৫ জনের মধ্যে আছেন ২৩ এবং শিক্ষক প্রতিনিধি আছেন ৩৩ জনের মধ্যে ২৫ জন। অন্যান্য প্রতিনিধিদের কেউ মারা গেছেন, আবার কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতা থেকে অবসর নিয়েছেন।