[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



বাবাকে নিয়ে জাবি শিক্ষার্থীদের কথা ও লেখা…


প্রকাশিত: June 15, 2014 , 5:00 pm | বিভাগ: ইভেন্ট


প্রতিটা সন্তানের কাছে তার বাবা একজন সুপার হিরো। কারণ সন্তান যখন যা চায় তার সুপার হিরো বাবা তাই সম্ভব করার চেষ্টা করেন। নিজের সাধ্যের সবটুকু দিয়ে একজন বাবা তার সন্তানকে খুশি করতে চায়।

১৫ জুন বিশ্ব বাবা দিবসে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের সুপার হিরো বাবাকে নিয়ে জানিয়েছেন মনের না বলা কথা। আবেগ-অনুভূতিতে পূর্ণ তাদের না বলা কথাগুলোই তুলে এনেছেন ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম এর জাবি প্রতিনিধি সানাউল্লাহ মাহী………..


নূর মোহাম্মদ জাবেদ, অর্থনীতি (৩য় বর্ষ):
পড়ালেখার জন্য ক্লাস ফাইভ থেকে হোস্টেলে আছি। যার কারণে খুব বেশি আব্বুর সঙ্গ পাইনি। তবে প্রতিবার বাসায় গেলে আব্বু যখন অনেক্ষণ জড়িয়ে ধরে রাখতেন তখন মনটা খুশিতে ভরে যায়। তখন মনে মনে বলি আব্বু তোমাকে অনেক ভালবাসি। আব্বু এখন অনেক বৃদ্ধ, ডায়বেটিসসহ বিবিধ রোগে ভুগছেন। কিন্তু উচ্চশিক্ষার জন্য এখন আব্বুর কাছ থেকে অনেক দূরে। চাইলে তার সেবা করতে পারিনা। বাবা দিবসে আব্বুকে খুব মিস করছি। আব্বু যাতে দীর্ঘদিন আমাদের মাঝে বেচে থাকে স্রষ্টার কাছে সেই প্রার্থনায় করি অন্তরের অন্তস্থল থেকে।


মু. হাসনাইন, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস (ব্যাচ-৪২):
বাবা পুলিশে চাকরী করেন। অনেক কষ্ট করে আমাদের লেখা-পড়া করাচ্ছেন। অনেক স্বপ্ন নিয়েই তিনি আমাদের পেছনে শ্রম দিচ্ছেন। তার এ স্বপ্ন যেন পূরণ করতে পারি। বাবার জন্য সব সময় দোয়া করি। আজকেও তার সাথে ৩ বার মোবাইলে কথা বলেছি। তাকে উইশ করেছি।


নাজমুল হক জেনিথ, নৃবিজ্ঞান (ব্যাচ-৩৮)
বাবাকে অনেক আজ বেশি মনে পড়ছে। কাছে থাকলে অনেক ভালো লাগত। আর বাবাকে ভালোবাসার জন্য বছরের ৩৬৫ দিনই নির্ধারিত বলে আমি মনে করি। বাবা তোমাকে আমি ৩৬৫ দিনই ভালোবাসি।  


বেলাল হোসাইন রাহাত , নৃবিজ্ঞান (ব্যাচ-৪০):
আদর্শ জীবন পরিচালনায় শৈশব কৈশোরে পিতাই হয়ে ওঠেন সন্তানের কাছে পরমবন্ধু। অনেক পিতা তার স্বপ্ন পূরণ করতে না পারলে সন্তানের মাধ্যমে সেই স্বপ্ন পূরণের নতুন স্বপ্ন বুনতে থাকেন। ব্যর্থ স্বপ্ন ও সাধ পূরণ করতে চান বাবা সন্তানের মাধ্যমেই। আর সন্তানও বেশিরভাগ সময় প্রভাবিত হয় বাবার ব্যক্তিত্বের ছায়ায়। তাই প্রতিটি মানুষের জীবনেই পিতা হলো বিশাল বটবৃক্ষ। যে ছায়ায় বসে সন্তান খুঁজে পান তার জীবনের দিশা ও অবলম্বন। এ জন্য বাবাই আমার আদর্শ, শক্তি ও অনুপ্রেরণার উৎস। বাবার স্নেহ ভালোবাসা সব সময় মনে পড়ে। ক্যাম্পাসে জীবন বাবাকে অনেক মিস করি।


মাইনুল ইসলাম, সরকার ও রাজনীতি (ব্যাচ-৪২):
আমার দৃষ্টিতে পৃথিবীতে আমার প্রাপ্তির আরেক নাম হল আবার বাবা। জন্ম কক্সবাজারের কোন এক গ্রামে হলেও পড়াশোনার তাগিদে মোটামুটি কৈশরকাল থেকেই বাসার বাইরে। তাই বাবার স্নেহ, ভালোবাসাটা কি তা সমসময় মনে পড়ে। আমার এমন কোন চাহিদা নেই যা বাবা পূরণ করেনি। আমার বাবা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ বাবা কি না জানিনা তবে আমার বাবা আমার কাছে সবার চেয়ে শ্রেষ্ঠ। আজকের এই দিনে বাবাকে জানাই হাজারো স্যালুট…….


মো. সাইফ উদ্দিন আবির, ভূ-তাত্ত্বিক বিজ্ঞান (ব্যাচ-৪১):  
বাবা যেন আলো আঁধারময় জগতের এক দীপ্তিময় তারা। যার একটু পরশ শুধু ক্ষণে ক্ষণে ছুঁয়ে যায় সন্তানকে। কিন্তু তার ছায়া কখনও বিলীন হয়ে যায় না। অনেক দিন আগের কথা মনে পড়ে। ছোট বেলায় বাবা যখন বেতন পেয়েই নতুন টাকার নোটগুলো আমার হাতে তুলে দিত। কি যে আনন্দিত হতাম। তাই বাবা দিবসে আমার সেই গর্বের মানুষটিকেই বলতে চাই ‘বাবা, তোমায় অনেক ভালোবাসি’। আসুন আমরা সবাই প্রতিজ্ঞা করি, ‘বৃদ্ধাশ্রম নয় প্রতিটি পিতামাতার শেষ স্থান হোক তার প্রিয় সন্তানের ঘর।’


ফাহিমা তুজ জোহরা তারিন, জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ (ব্যাচ-৪১):
তোমারই আলোয় এ ভুবনের আলো দেখেছি। পাখি যেমন আগলে রাখে তার সন্তানকে, ঠিক তেমনি সব বিপদ থেকে তুমি আগলে রেখেছ। বাবা তোমাকে অনেক ভালোবাসি

জাবি// এসএম, ১৫ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// টিটি