[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



রিকশা চালিয়ে তিন ছেলেকে ঢাবি, চবি ও মেডিকেলে পড়াচ্ছেন বাবা


প্রকাশিত: November 14, 2014 , 2:30 pm | বিভাগ: আপডেট,ক্যাম্পাস,পাবলিক ইউনিভার্সিটি,ফিচার,মেডিকেল কলেজ


লাইভ প্রতিবেদক : এক ছেলে পড়াশোনা করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, অন্য দুইজন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে পড়াশোনা করেন। অদম্য এ মেধাবীরা দরিদ্র রিকশাওয়ালা বাবার সন্তান। রিকশা চালিয়ে বাবা বহু কষ্টে তাদের লেখাপড়া করাচ্ছেন। এমন ভাগ্য কয়জনের থাকে।

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ঘটনা এটি। ওই রিকশাচালক  চাটখিল উপজেলায় গত এক যুগ ধরে রিকশা চালিয়ে কঠোর পরিশ্রম করে অর্থ উপার্জন করেছেন। সেই টাকা দিয়ে  তিন ছেলেকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তার নাম জাকির হোসেন (৫৫)।

জাকির হোসেনের বাড়ি হাতিয়া উপজেলার বাইশ নং দাসের হাটে। অতি দরিদ্র পরিবারে তার জন্ম। নিজেদের ছোট্ট একটা বসত ভিটা ছাড়া নেই কোন জায়গা জমিন। নিজে কোন পড়াশোনা না জানলেও তার দৃঢ় ইচ্ছা শক্তি ছিল সন্তানদের তিনি পড়াশোনা করাবেন। সেই ইচ্ছে শক্তিকে বাস্তবে রূপ দিতে পাশে পান তার সহধর্মিণী আলেয়া বেগমকে। জাকির নিজ এলাকায় অন্যের জমিন বর্গা নিয়ে আবার কখনো কামলা খেটে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ছেলেদের পড়াশোনা চালিয়ে গেছেন।

এক পর্যায়ে আরও বেশী অর্থ উপার্জনের জন্য সে চাটখিলে এসে রিকশা চালনো শুরু করেন। এখানে নিজে একা থেকে আয়ের সামান্য অংশ নিজে খরচ করে বাকী টাকা সংসার আর ছেলেদের পড়াশোনার পেছনে ব্যয় করছেন জাকির।

তিনি জানান, তার মোট ৫ ছেলে। তার মধ্যে বড় ছেলে রাসেল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজীতে অনার্স করছেন, আরেক ছেলে আজাদ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দর্শনে অনার্স করছে, আরেক ছেলে ফরিদ সদ্য সুযোগ পেয়েছে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে। বাকী এক ছেলে পঞ্চম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত আছে এবং অপর ছেলে চাটখিল বাজারে ব্যবসা শুরু করেছে।

জাকির হোসেন জানান, ছেলেরা তাকে রিকশা চালানো ছেড়ে দিতে চাপ দিচ্ছেন। তিনিও তা শীঘ্রই ছেড়ে দেবেন বলে ভাবছেন। একথাগুলো বলছিলেন আর জাকিরের চোখের কোনে পানির ঢউ খেলে যাচ্ছিল।

[Courtesy: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদ]

 

ঢাকা, ১৪ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেএন