[english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ



বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে একদিন…


প্রকাশিত: August 16, 2014 , 10:21 pm | বিভাগ: ট্যুরিজম এন্ড এনভায়রনমেন্ট


2

আতিকুর রহমান: ঢাকার অদূরে গাজীপুরের ঐতিহ্যবাহী শালবনের ৩৬৯০ একর জায়গা নিয়ে গড়ে উঠেছে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক। ২০১০ সালে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পর ২০১৩ সালের ৩ অক্টোবর এই পার্কের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
কিভাবে যাবেন?
ঢাকা থেকে মাত্র ৪০ কিলোমিটার দূরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক থেকে তিন কিলোমিটার ভিতরে এই পার্কটির অবস্থান। ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ এর বাসে অথবা গাজীপুর চৌরাস্তা হয়ে চৌরাস্তা থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে বাঘের বাজার নামক স্থানে বাস থেকে নামতে হবে। সেখান থেকে লেগুনা অথবা রিক্সা যোগে মেইন রোড থেকে তিন কিলোমিটার ভিতরে পার্কটির অবস্থান।

প্রবেশ মূল্য88
সাধারনের প্রবেশ মূল্য ৫০ টাকা এবং বাচ্চাদের প্রবেশ মূল্য ২০ টাকা। এখানে প্রথম দিকে ছাত্রদের জন্যে ১০ টাকা মূল্যের টিকেট থাকলেও এখন সে ব্যবস্থা নেই বলে জানালেন কর্তৃপক্ষ।
এক নজরে সাফারি পার্ক
পার্কের প্রবেশদ্বারেই রয়েছে বিরাট হাতির ভাস্কর্য। একটু ভিতরে প্রবেশ করলেই দেখা যাবে পার্কের প্রদর্শনী ম্যাপ এবং সাধারন ম্যাপ। বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ককে কোর সাফারি পার্ক, সাফারি কিংডম, বায়ুডাইভারসিটি পার্ক, বঙ্গবন্ধু স্কয়ার এবং এক্সটেনসিভ এশিয়ান সাফারি পার্ক নামে পাঁচটি অঞ্চলে ভাগ করা হয়েছে। প্রদর্শনী ম্যাপে এই সকল অঞ্চলকে খুব সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলা হয়েছে যেন যে কেউ এক নজর দেখলেই বুঝতে পারে কোন অঞ্চলে কি আছে।
কোর সাফারি পার্ক
সর্বমোট ১২২৫ একর জায়গা নিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে কোর সাফারি পার্ক। এখানে কোন দর্শনার্থীই পায়ে হেঁটে প্রবেশ করতে পারবে না। এখানে প্রবেশ করার জন্যে আপনাকে ১০০ টাকার টিকিটের মাধ্যমে পার্কের নিজস্ব বাসে করে ঘুরে দেখতে পারবেন। বাস কোর অঞ্চল দিয়ে যাচ্ছে আর আশেপাশেই মুক্ত ভাবে বিচরণ করছে বাঘ, সিংহ, হাতি, গন্ডার, ভল্লুক, হরিণ, গয়াল। দেখে অনেকটা মনে হবে আপনি খুব কাছে থেকেই ছিন্ন ছাড়া এই প্রানীগুলো উপভোগ করছেন। কোর সাফারি পার্কের ২৪০ একর জায়গা জুড়ে রয়েছে আফ্রিকান সাফারি পার্ক। এখানেও মুক্ত ভাবে বিচরণ করতে দেখবেন অয়াইল্ড দিবি77স্ট, জেব্রা এবং জিরাফের মত বিরল প্রাণী।
বঙ্গবন্ধু স্কয়ার
পার্কে প্রবেশ করতেই প্রথম চোখে পড়ে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার। ৩৮ একর আয়তনের এই স্কয়ারে আছে সুন্দর ফোয়ারা, তথ্য ও শিক্ষা কেন্দ্র, সুশীতল লেক এবং পার্ক অফিস। জীব বিচিত্রকে জানার জন্যে এখানে তৈরি করা হয়েছে নেচার হিস্ট্রি মিউজিয়াম। সব মিলিয়ে এক অসাধারণ প্রাকৃতিক সুন্দর পরিবেশ উপভোগ করা যায় এই স্কয়ার থেকে।

সাফারি কিংডম
এই অঞ্চলে আপনাকে প্রবেশ করতে হবে পাহাড়ি গুহার মধ্য দিয়ে। এখানে প্রবেশ করতে আপনাকে ২০ টাকা মূল্যের টিকিট নিতে হবে। সাফারি কিংডমে আপনি প্রথমেই উপভোগ করতে পারবেন পাখির মেলা যেখানে আপনাকে দেশি বিদেশি নানা পাখির কিচিরমিচির মাতোয়ারা করে তুলবে। এর ভিতরেই রয়েছে প্রকৃতি বীক্ষণ কেন্দ্র যার আলো-আধার খেলা আর শব্দ আপনাকে বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী এবং গাছপালা সম্পর্কে অন্যরকম এক প্রাকৃতিক অনুভুতি দিবে।3
বন্য প্রাণী দেখার জন্যে এখানে রয়েছে পর্যবেক্ষণ টাওয়ার। শকুন, ধনেশ, ইমু, উট পাখি পেঁচা প্রভৃতি পাখির জন্যে এখানে রয়েছে আলাদা আলাদা এফিয়ারি।
এর ভিতরের বাটারফ্লাই পার্কে আপনাকে ঢুকতে ২০ টাকা খরচ করতে হবে যার প্রথমেই দেখতে পাবেন কিভাবে প্রজাপতি ধাপে ধাপে বংশ বৃদ্ধি করে, শত রকমের প্রজাপতির ছবি এবং নাম। বাটারফ্লাই পার্কের ভিতরে প্রবেশ করলে দেখতে পাবেন নানা রঙ বেরঙের প্রজাপতি উড়ে বেড়াচ্ছে যেন আপনাকে পরশ বুলিয়ে দিচ্ছে।
এখানে সরীসৃপ প্রাণীদের জন্যে রয়েছে ক্রুকুডাইল পার্ক, স্নেক পার্ক এবং লিজারড পার্ক। তাছাড়া এখানে বুনো হাঁসদের জন্যে রয়েছে বিশাল বিশাল আটটি জলাধা যেখানে দেশি বিদেশী সোয়ান এবং ডাক গুলো সহজেই বিচরন করতে পারে।
এই সাফারি কিংডমের ভিতরেই রয়েছে অসাধারণ ময়ূর শালা। আপনি উপর থেকে খুব সুন্দর ভাবে ময়ূরদের পেখম মেলা উপভোগ করতে পারবেন। এখানে প্রবেশ করতে আপনাকে অবশ্য ১০ টাকা খরচ করতে হবে।

বায়ুডাইভারসিটি পার্ক2
পার্কের এক পাশে নানা দেশি বিদেশি গাছ সংরক্ষন করতে ৮২০ একর জায়গায় নির্মাণ করা হয়েছে বায়ুডাইভারসিটি পার্ক। এই ভাগে মূলত প্রাধান্য পেয়েছে গাজীপুরের ঐতিহ্যবাহী শাল গাছ।
ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা
এই পার্কের সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। এখানে প্রাণী বিচিত্র ও গাছপালা পরিদর্শনের জন্যে মনোরেল এবং কেবলকারের মত আধুনিক প্রযুক্তি নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।
আবাসিক ব্যবস্থা
সাধারন দর্শনার্থীদের জন্যে এখানে এখনও কোন আবাসিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তবে আপনি যদি থাকতে চান তাহলে আপনাকে গাজীপুর শহরের আবাসিক হোটেলে অবস্থান নিতে হবে।

গাজীপুর, ১৬ আগষ্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএইচ